স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম এর ১০ টি মূল উপায় ২০২৪

বর্তমানে ছাত্রছাত্রীদের ইনকামের জনপ্রিয় মাধ্যম অনলাইন। ঘরে বসে শৌখিন কাজ করতে স্টুডেন্টরাও বেশ আগ্রহী। কিন্তু অনেক স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম করতে এসে হতাশ। কারণ সঠিক উপায় গাইডলাইনের অভাবে তারা সঠিক রাস্তা খুজে পান না । আশা করি, আজকের আর্টিকেলটি পড়লে স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম সম্পর্কে একটি পরিষ্কার ধারণা গাইডলাইন পেয়ে যাবেন।

স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম

স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম

পড়াশোনার পাশাপাশি  অনলাইনে কাজ  আপনি অনেক বেশি সফলতা অর্জন করতে পারেন। বিভিন্ন উৎস থেকে একই সাথে আয় করতে পারেন। আপনার নিজের জীবনের স্বাধীনতা আপনার নিজের হাতে থাকে। তাহলে চলুন জেনে নেই স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম এর ১০ টি মূল উপায় ।

কন্টেন্ট রাইটিং করে ইনকাম

১। কন্টেন্ট রাইটিং করে ইনকাম:

স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম এর সেরা একটি মাধ্যম কন্টেন্ট রাইটিং। এখন প্রশ্ন হলো কন্টেন্ট রাইটিং কী? নির্দিষ্ট কোনো টপিকের উপর বিস্তারিত লেখাই হচ্ছে কন্টেন্ট রাইটিং। আপনার যদি লেখালেখির প্রতি আগ্রহ থাকে, তাহলে কন্টেন্ট রাইটিং এর কাজ আপনার জন্য। বিভিন্ন ওয়েবসাইটের জন্য দৈনিক কন্টেন্ট এর প্রয়োজন হয়, তাই সাইট মালিকরা লেখকদেরকে নিজেদের সাইটে নিয়োগ করে। তারা আপনাকে লিখার জন্য নির্দিষ্ট বিষয় (keyword) দিয়ে দিবে, আপনাকে টপিক অনুযায়ী লিখতে হবে। এতক্ষণে নিশ্চয়ই বুঝে গেছেন কন্টেন্ট রাইটিং কি। তবে কন্টেন্ট রাইটিং এ দক্ষ হতে হলে সৃজনশীল মেধার ব্যবহার করতে হবে এবং ধৈর্য ধরতে হবে। অন্যের লেখা কন্টেন্ট যত বেশি পড়বেন আপনার লেখা তত ভালো হবে। মনে রাখবেন,  লেখক হওয়ার আগে  অবশ্যই পাঠক হওয়া জরুরি।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম

২। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম

যত দিন যাচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর চাহিদা তত বাড়ছে। কারণ, বর্তমানে সবাই অনলাইন নির্ভর হয়ে যাচ্ছে। তাই আপনি যদি অল্প সময়ে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে চান, তাহলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হতে পারেন আপনার জন্য সেরা সুযোগ। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী? বিভিন্ন পণ্য অনলাইনে ই- কমার্স ওয়েবসাইটের মাধ্যমে  প্রচার করে বিক্রি করাই মূলত  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। প্রতিটি পণ্যের উপর কমিশন দেওয়া হয়, আপনি বিক্রি করে দিতে পারলেই কমিশন পাবেন। প্রতি পন্যের উপর ৫%,১০%,২০% কমিশন থাকে। পণ্য ডেলিভারি দেওয়া সহ যাবতীয় কাজ কোম্পানি করবে আপনি শুধু অনলাইনে বিক্রি করে দিবেন। আশা করি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে ধারণা পেয়ে গেছেন। এই কাজে দক্ষ হতে পারলে লাইফটাইম কাজ করার সুযোগ আছে। যদিও প্রথম পর্যায় টাকা ইনকাম করতে একটু কষ্ট হবে কিন্তু দক্ষতা অর্জন করলে খুবই সহজ মনে হবে।

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজ করে ইনকাম

৩। সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজ করে ইনকাম

সোশ্যাল মিডিয়া সম্পর্কে যাঁদের জ্ঞান বেশি তাদের জন্য রয়েছে  সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট জব। সোশ্যাল মিডিয়ায় যারা বেশি জনপ্রিয়, তারা তাদের সাইট বা আইডি পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রন করতে মডারেটর নিয়োগ দেয়। কারণ তাদের পক্ষে সারাক্ষণ সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকা সম্ভব না। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের সক্রিয় থাকতে হয়। আপনার যদি সময় থাকে, তাহলে এই কাজটি করতে পারেন। চাকরির বিজ্ঞপ্তিতে সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট জব অফার থাকে। তাই চাকরি বিজ্ঞপ্তিতে চোখ রাখবেন প্রতিনিয়ত। অফার পাওয়ার সাথে সাথে অবেদন করবেন। 

অনলাইন টিউশনি করে ইনকাম

৪। অনলাইন টিউশনি করে ইনকাম

যত দিন যাচ্ছে প্রযুক্তির কারণে জীবনমান তত উন্নত হচ্ছে। পড়াশোনায়ও লেগেছে প্রযুক্তির হাওয়া। এখন ঘরে বসেই শিক্ষা অর্জন করা যায় অতি সহজে। আপনি যদি একজন ভালো টিউটর হয়ে থাকেন, তাহলে অনলাইনে টিউশনি করিয়ে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন। স্মার্টফোনের মাধ্যমে অনলাইনে জুম অ্যাপ কিংবা  ফেসবুক সিক্রেট গ্রুপে স্টুডেন্টদের পাঠদান করাতে পারবেন। এজন্য আপনার বড় কোনো কক্ষের প্রয়োজন হবে না। ঘরে বসেই প্রচুর স্টুডেন্ট অনলাইনে পড়াতে পারবেন। আপনার মনে যদি এমন প্রশ্ন যাগে যে, স্টুডেন্ট পাবো কই? তাহলে শুনুন, লেখাপড়া সম্পর্কিত বিভিন্ন গ্রুপে টিউশনি নিয়ে পোস্ট করবেন। আগ্রহীরা আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং প্রথমে কয়েকজন নিয়ে শুরু করবেন অনলাইন টিউশনি। হতাশ হবেন না, কারণ আপনার পড়ানোর ধরন ভালো হলে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তে থাকবে।

ইউটিউবিং করে ইনকাম

৫। ইউটিউবিং করে ইনকাম

নিজেকে সবার সামনে তুলে ধরার সেরা একটি অন্যতম প্লাটফর্ম  হলো ইউটিউব। এই  সেক্টরে দক্ষ হতে পারলে আপনি সারাদেশে ভালো পরিচিতি লাভ করতে পারবেন এবং অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এখন বিশ্বের অনেক মানুষ ইউটিউবিং করে ঘরে বসে ব্যাপক টাকা ইনকাম করছে। তাহলে আপনি কেন বসে থাকবেন? স্টুডেন্ট অবস্থায় যদি আপনার বাড়তি সময় থাকে, তাহলে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে টাকা ইনকাম শুরু করে দিন। এই সেক্টরে রাতারাতি সফলতা হওয়া যায় না। ধৈর্য ধরে কন্টেন্ট তৈরি করতে হয়। তাই ইউটিউবিং করে টাকা ইনকাম করতে চাইলে একমনে লেগে থাকুন।

আপনি ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব সম্পর্কে জানতে  চাইলে লিঙ্কে ক্লিক করুন।

ব্লগিং করে ইনকাম

৬। ব্লগিং করে ইনকাম

স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম এর জনপ্রিয় মাধ্যমগুলোর মধ্যে ব্লগিং একটি। আপনি জানলে অবাক হবেন, শুধু ব্লগিং করেই  লাখ লাখ টাকা ইনকাম করা যায়। ব্লগিং কী? ওয়েবসাইট তৈরি করে, সেখানে আর্টিকেল বা কন্টেন্ট পাবলিশ করে বিজ্ঞাপন থেকে টাকা ইনকাম করাই হচ্ছে ব্লগিং। ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করা এখন অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। তাই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে চাইলে ব্লগিং করতে পারেন। ব্লগিং এ বিজ্ঞাপন ছাড়াও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, সার্ভিস বিক্রয় সহ টাকা ইনকাম করার অনেক সুযোগ আছে। ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে চাইলে, আগে ব্লগিং সম্পর্কিত জ্ঞান রাখুন।

আপনি ব্লগ তৈরির নিয়ম ও ইনকামের বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে জানতে  চাইলে নিচের লিঙ্ক গুলিতে ক্লিক করুন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ইনকাম

৭। গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ইনকাম

যাদের আঁকাআঁকি এবং ডিজাইনের প্রতি আগ্রহ বেশি তাদের জন্য রয়েছে প্রচুর টাকা ইনকামের সুবর্ণ সুযোগ। গ্রাফিক্স ডিজাইন করে তারা মাসে প্রচুর ইনকাম করতে পারবে খুব সহজে। কারণ, গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা এখন আকাশচুম্বী। তবে গ্রাফিক্স ডিজাইনের বড় অস্ত্র সৃজনশীল মেধা। সৃজনশীলতার আদলে সফটওয়্যার ব্যবহার করে কোনো তথ্যকে নকশার মাধ্যমে তুলে ধরাই হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। রাস্তার পাশে বিলবোর্ড থেকে শুরু করে বিবাহের কার্ডে রয়েছে গ্রাফিক্স ডিজাইনের ছোঁয়া। তাই এই কাজে দক্ষ হতে পারলে ভবিষ্যৎ নিয়ে আর ভাবতে হবে না। সেজন্য স্টুডেন্ট অবস্থায় এই কাজ শিখে রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ। বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠান গ্রাফিক্স ডিজাইনের কোর্স করিয়ে থাকে, তাদের কাছ থেকে কাজ শিখে মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন।

আরও পড়ুনঃগ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স কোথায় শিখব আর কিভাবে শিখবো??

ফাইভারে কাজ করে ইনকাম

৮। ফাইবারে কাজ করে ইনকাম

স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকামের আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো ফাইভার। ফাইবারে বিশ্বের অনেক মানুষ কাজ করে টাকা ইনকাম করছে। একের ভিতর অনেক ধরনের কাজ রয়েছে ফাইভারে। তাই আপনি যেকোনো একটি কাজে দক্ষ হয়ে ফাইবারে কাজ করতে পারবেন। ফাইবারে প্রতিদিন হাজার হাজার কাজ পড়ে থাকে, তাই দক্ষতা থাকলে কাজের অভাব হবে না। ফাইবারে অনেক ধরনের কাজ আছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু কাজ হলো- লোগো ডিজাইন, অ্যানিমেশন, ফটোশপ ইডেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া ডিজাইন, প্রডাক্ট ডিজাইন সহ আরও অনেক কাজ। বলতে গেলে অনলাইনের প্রায় সকল কাজই ফাইবারে থাকে। তাই অনলাইনে যেকোনো কাজে দক্ষ হলেই ফাইবারে থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ফটোগ্রাফি করে ইনকাম

৯। ফটোগ্রাফি করে ইনকাম

ছবি সুন্দর ফ্রেমে তুলে ধরা বা ছবি তোলা যাদের নেশা, তারাই ফটোগ্রাফি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। ফটোগ্রাফি একটা আর্ট যা, সবার দ্বারা হয় না। তাই ফটোগ্রাফি শিখতে চাইলে ধৈর্য ধরে লেগে থাকতে হয়। ফটোগ্রাফিতে দক্ষ স্টুডেন্টরা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ফটো বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারেন। ফটোগ্রাফি শিখে আপনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও কাজ করতে পারবেন। 

ডাটা এন্ট্রি করে ইনকাম

১০। ডাটা এন্ট্রি করে ইনকাম

স্টুডেন্টদের জন্য অনলাইন ইনকামের সহজ একটি মাধ্যম ডাটা এন্ট্রি। কাজটি সহজ হলেও আগে দক্ষ হতে হবে। দক্ষতা ছাড়া টাকা ইনকাম করা মেঘহীন বৃষ্টির মতো। যাদের মাইক্রোসফট টুলস এবং এক্সেলের উপর ধারণা আছে, তারা সহজেই ডাটা এন্ট্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারবে। এর মাধ্যমে মোটামুটি ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করা সম্ভব। তবে বর্তমানে অনলাইনে দিনদিন প্রতারকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই অনেক কোম্পানি ডাটা এন্ট্রি কাজ আপনার থেকে করিয়ে পেমেন্ট দিবে না। সুতরাং জেনেশুনে বিশ্বস্ত কোম্পানির কাজ করুন।

শেষ কথা

স্টুডেন্ট থাকাকালীন পার্ট টাইম জব করলে অনেকটাই এগিয়ে যাওয়া যায়। কারণ নির্দিষ্ট একটা বয়সের পর নিজের উপর নির্ভরশীল হওয়া জরুরি। বর্তমানে চাকরির বাজারের বেহাল দশা, তাই আগে থেকেই যেকোনো কাজে দক্ষ হওয়া উচিত।

এতক্ষণ আমরা স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম এর দশটি উপায় নিয়ে আলোচনা করেছি। এরমধ্যে আপনি যেকোনো একটি কাজে দক্ষ হয়ে, অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আশা করি, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে অনলাইন ইনকামের উপায়গুলো জেনে গেছেন। আমাদের আর্টিকেল পড়ে আপনার যদি বিন্দু পরিমান ও উপকার করতে পারি তাহলেই আমাদের সার্থকতা। দীর্ঘ সময় ধরে আমাদের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Hridoy Ahmed

Hridoy Ahmed

হ্যালো, আমি হৃদয়। বর্তমানে একজন স্টুডেন্ট। পড়াশোনার পাশাপাশি ভালোলাগা থেকে ব্লগিং করি। ব্লগিং ছাড়াও গল্প, উপন্যাস ও কবিতা লেখার প্রতি আমার অধিক আগ্রহ। তাই নিজে নতুন কিছু জানার চেষ্টা করছি এবং অন্যকে জানানোর চেষ্টায় আছি।

Leave a Comment